মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

মুক্তিযুদ্ধে নাগেশ্বরী উপজেলা

নাগেশ্বরী উপজেলায় যুদ্ধক্ষেত্র ’৭১ :

 

তালতলা যুদ্ধক্ষেত্র:

      সন্তোষপুর ইউনিয়নের নিলুর খামার মৌজার তালতলায় পাক বাহিনীর সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের সশস্ত্র যুদ্ধ সংঘটিত হয়। তালতলা যুদ্ধক্ষেত্রটি সন্তোষপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের নিকট অবস্থিত।

 

উত্তর ব্যাপারীর হাট যুদ্ধক্ষেত্র :

      সন্তোষপুর ইউনিয়নের উত্তর ব্যাপারী হাটের নিকট ৭১ সালে মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে পাকবাহিনীর কয়েকদফা যু্দ্ধ সংঘটিত হয়েছিল। তন্মধ্যে ঐ বছর ২৬ রমজানের দিনে পাকবাহিনীর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের লড়াই ছিল উল্লেখ করার মতো। ঐ দিন পাকবাহিনীর অতর্কিত হামলায় মুক্তিযোদ্ধারা দিশেহারা হয়ে নিরাপদ দুরত্বে প্রস্থান করলে বিক্ষুব্ধ পাকসেনারা গ্রাম বাসীকে তাড়িয়ে এনে পাশ্ববর্তী বাঁশঝাড়ের নিকটে জড়ো করে এবং  সেখানে ষ্টেনগানের গুলিতে আবাল বৃদ্ধ বনিতাসহ মোট ৬২ জনকে হত্যা করে। তাছাড়াও গ্রাম বাসীদের বাড়ী ঘর জ্বালিয়ে দেয়। নাগেশ্বরী থানার সবচেয়ে বড় বধ্যভূমি হিসেবে এ স্থানটি চিহ্নিত।

 

চন্ডিপুর যুদ্ধক্ষেত্র :

       ’৭১ সালে ট্রাকে করে মুক্তিযোদ্ধাদের একটি সুসজ্জিত দল ধরলা ঘাট যুদ্ধক্ষেত্রে যাওয়ার সময় হাসনাবাদ ইউনিয়নের চন্ডিপুরে পাক হানাদারদের এম্বুশে পড়ে ৭ জন নাগেশ্বরীর কৃর্তী সন্তান ও ই.পি.আর সদস্যসহ মোট ১৭জন বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাদত বরণ করেন।

 

দক্ষিণ ব্যাপারীহাট যুদ্ধক্ষেত্র :

       মুক্তিযোদ্ধা ও ভারতীয় সেনার সম্মিলিত বাহিননীর সঙ্গে ২৮ নভেম্বর ১৯৭১ এ দক্ষিণ ব্যাপারীর হাটে পাকসেনাদের যুদ্ধ হয়। এখানে দু’জন বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ ভারতীয় বাহিনীর ৭/৮ জন যোদ্ধা শহীদ হন এবং ৩০/৩৫ জন পাকহানাদার নিহত হয়।